এই মুহুর্তে লিখতে গিয়ে হাত কাপছে, এনার্জি নাই সারাদিন হসপিটালে ছোটাছুটি করার পর

প্রকাশিত: ৪:৫৪ অপরাহ্ণ, মে ৩, ২০২০

ইশরাত নাহের ইরিনা, ০৩ মে ২০২০: এই মুহুর্তে লিখতে গিয়ে হাত কাপছে।

এনার্জি নাই সারাদিন হসপিটালে ছোটাছুটি করার পর।
গত ১৯ দিন ধরে আব্বুকে নিয়ে হসপিটালে।

ইশরাত নাহের ইরিনা

এভাবেই কাটছে।
আজকে লিখছি অন্য একটি কারনে।
আমাদের শ্রীমঙ্গলে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে এবং আরো সংখ্যায় বাড়ছে।
প্রথমত বলবো, করোনা রোগীর প্রতি সদয় হবেন, যদি উনার হার্ট, লিভার, কিডনি ফাংশন ভালো থাকে, তাহলে বাসাতে বসেই চিকিৎসা সম্ভব। ভয় পাবার কোনো কারন নেই। ভয় পেলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমবে।
করোনা রোগীর বাসায় ফল পাঠানো হচ্ছে, ভালো উদ্যোগ।
কিন্তু এই মুহুর্তে সব ফল খাওয়া যাবে না।
ঠান্ডা খাবার খাওয়া যাবে না।
ভিটামিন সি আছে এমন ফল খাবেন, বাকিসব বাদ দিবেন।
বাজারে আমলকি থাকলে শুধু সেটা দিয়েই ভিটামিন সি এর চাহিদা পূরন করা যাবে।
চিনি জাতীয় খাবার এবং শর্করা জাতীয় খাবার কমাতে হবে, কারন এসব ভাইরাস grow করার মিডিয়াম হিসেবে কাজ করে।
পানিতে দাড়চিন, আদা, লবংগ, এলাচি দিয়ে সেদ্ধ করে পানি অর্ধেক করে তারপর সেই পানিতে ভাপ নিবেন, তারপর একটু ঠান্ডা হলে সেটাকে এক দুই ঘন্টায় খাবেন।
কাচা রসুন এবং কালজিরা খাবেন।
ভাত কম খাবেন।
গরম পানি খাবেন।
শাক সবজী বেশি খাবেন।
ঠান্ডা কিছু খাবেন না।
পানি নিয়ে গড়গড়া করবেন।
মানসিকভাবে ভেংগে পড়বেন না।

আর ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে মেডিসিন খাবেন।
আপনার বাসায় যে যাই পাঠাক, খুশি মনে গ্রহন করেন কিন্তু সব খাবেন না, বুঝে শুনে খাবেন।

এই ভাইরাস কিছুদিন পর স্বাভাবিক ভাইরাস হয়ে যাবে, ভয় পাবেন না।

আমি এখন আব্বুকে নিয়ে হসপিটালে থাকার কারনে সারাদিন বাইরে থাকি, সামাজিক দুরত্ত্ব কেউ এখানে মানে না।
আমি মেনেই নিয়েছি যেকোনো সময় আমি আক্রান্ত হতে পারি।
তাই আমি এখন থেকেই সতর্ক থাকছি, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য যতটুকু সম্ভব সেটা চেস্টা করছি।
কারন আমি আক্রান্ত হলে আব্বু ও হবে, হসপিটালে বাকিদের ও হতে পারে।

তাই এখন থেকেই আপনারাও সতর্ক হোন, ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার আগে পদক্ষেপ নিন।

আমি আর লিখতে পারছিনা, শারীরিক এবং মানষিক শক্তি নেই। তাই বিস্তারিত লিখতে পারলাম না।

শ্রীমঙ্গলের কেউ যদি করোনায় আক্রান্ত হয়েও যান, আমাকে ইনবক্সে নক দিবেন, আমি আমার নাম্বার দিয়ে দিবো।
আপনি চাইলে আমি কিভাবে বাসায় বসে চিকিৎসা করতে হবে সেটা বলে দিবো। অন্তত চেস্টা করবো। সকাল থেকে রাত কিভাবে হয় আমি জানিও না। খুব অসহায় লাগে মাঝেমাঝে।

আর লকডাউনলোড? বাংলাদেশে এখনো শুরু হয় নাই। আর কিছু বললাম না। এনার্জি নাই।

কিন্তু দয়া করে এই মুহুর্তে সব খাবেন না।
ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

সবাই ভালো থাকুন।