বাউল রনেশ ঠাকুরের বাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ ছাত্রমৈত্রীর

প্রকাশিত: ১:৩২ অপরাহ্ণ, মে ২০, ২০২০

বাউল রনেশ ঠাকুরের বাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ ছাত্রমৈত্রীর

ঢাকা, ২০ মে ২০২০: বাউল রনেশ ঠাকুরের বসতবাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রী।

আজ বুধবার সংগঠনের দপ্তর সম্পাদক হাসিদুল ইসলাম ইমরান স্বাক্ষরিত এক যৌথ বিবৃতিতে সংগঠনের সভাপতি ফারুক আহমেদ রুবেল এবং সাধারণ সম্পাদক কাজী আব্দুল মোতালেব জুয়েল বলেন, ‘বাউল শিল্পীরা নিজের ধর্ম-বর্ণ-জাতি-গোত্র ভাবনার উর্ধ্বে গিয়ে সকল ভোগ বিলাসিতাকে বিসর্জন দিয়ে বাঙালী সংস্কৃতি, ঐতিহ্যকে কালের পর কাল বহন করে আসছেন। তাদের উপর আক্রমন মূলত বাংলাদেশের সংস্কৃতি, ঐতিহ্য এবং অসাম্প্রদায়িক চেতনার উপর বাঙালী সংস্কৃতি, ঐতিহ্য বিরোধী সাম্প্রদায়িক আক্রমনের শামিল। করোনাকালীন দুঃসময়ের সুযোগ নিয়ে সাম্প্রদায়িকচক্র দেশের অসাম্প্রদায়িক চেতনার উপর মরণছোবল বসানোর সুযোগ নিচ্ছে। বাউল রনেশ ঠাকুরের বসতবাড়ি পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। আমরা উক্ত ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জ্ঞাপন করছি।’

সংগঠনের কেন্দ্রীয় বিবৃতিতে তারা আরো বলেন, ‘জামায়াত-হেফাজত তথা সমভাবাপন্ন ধর্মান্ধ সাম্প্রদায়িক-মৌলবাদী-সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠী কর্তৃক বাউল সম্প্রদায়ের উপর এমন নৃশংস হামলা-অগ্নিসংযোগের ঘটনা বাংলাদেশে এই প্রথম নয়। কিন্তু সাম্প্রদায়িক শক্তির কাছে সরকারের নতজানু মানসিকতা, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যর্থতা, বিচারহীনতার অপসংস্কৃতির কারণে বারবার হামলাকারীরা পার পেয়ে যায়। রাষ্ট্রীয় সংবিধানের চার মূলনীতির উপর কঠিনহস্তে দাড়িয়ে আমাদের সকল সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসীদের বিচার নিশ্চিত করতে হবে। অন্যথায় পরাজিত হবে মুক্তিযুদ্ধের অসাম্প্রদায়িক চেতনা, বিপথগামী হবে বাঙালী সংস্কৃতি।’

বিবৃতিতে দেশের সর্বস্তরের ছাত্র-শিক্ষক-জনতাকে দল-মত নির্বিশেষে সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ