অস্থিতিশীল শ্রমবাজারে শ্রমিক ছাঁটাই হলে দুর্যোগ আরও বাড়বে’: বিসিএল

প্রকাশিত: ৭:১৪ অপরাহ্ণ, জুন ৫, ২০২০

অস্থিতিশীল শ্রমবাজারে শ্রমিক ছাঁটাই হলে দুর্যোগ আরও বাড়বে’: বিসিএল

ঢাকা, ০৬ জুন ২০২০ : নভেল করোনা ভাইরাসের কারণে অস্থিতিশীল শ্রমবাজারে নতুন করে ছাঁটাই শুরু হলে তা জাতীয় দুর্যোগকে আরও ঘনীভূত করবে বলে আশঙ্কা করছেন অধিকার কর্মীরা।

শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধনে নিজেদের এমন আশঙ্কার কথা জানান তারা।
আসন্ন ২০২০-২১ জাতীয় বাজেটে শ্রমিকদের অধিকার রক্ষার দাবিতে বাংলাদেশ কনফেডারেশন অব লেবার- বিসিএল এই মানববন্ধন আয়োজন করে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয় ।
করোনা ভাইরাস মহামারীর সঙ্কটে দেশের পোশাক কারখানাগুলো সক্ষমতার অর্ধেক ব্যবহার করে কাজ চালাতে পারছে জানিয়ে বৃহস্পতিবার বিজিএমইএ সভাপতি ‍রুবানা হক বলেছেন, এর প্রভাবে চলতি জুন মাস থেকেই কর্মী ছাঁটাই শুরু হতে পারে।
মানববন্ধনে বিসিএল সভাপতি সুলতানা বেগম বলেন, “করোনা ভাইরাসের আক্রমণে শ্রমিকরা যখন অর্ধাহারে, অনাহারে জীবন যাপন করছে, যখন ঠিকমতো মজুরি পাচ্ছে না তখন গার্মেন্টস মালিকরা নানা অজুহাতে হাজার হাজার শ্রমিককে বেআইনিভাবে ছাঁটাই করছেন। নতুন করে বিজিএমেএ সভাপতি শ্রমিক ছাঁটাইয়ের ঘোষণা দিয়ে দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিয়েছেন।”
বর্তমান পরিস্থিতিতে শ্রমিক ছাঁটাই হলে জাতীয় দুর্যোগ আরও বাড়বে আশঙ্কা করে তিনি বলেন, এখন বেতন কর্তন ও অল্প শ্রমিক দিয়ে অধিক উৎপাদনের চেষ্টা চলছে।
২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট প্রণয়নের প্রস্তুতি চলছে। বাজেটের সম্ভাব্য আকার ধরা হয়েছে ৫ লাখ ৫০ হাজার কোটি টাকা; যা চলতি অর্থ বছরের চেয়ে ৫ শতাংশ বেশি।
বাজেটে গার্মেন্ট শ্রমিকদের সামাজিক নিরাপত্তা, রেশনিং, আবাসন, স্বাস্থ্যসেবা, শিল্প অঞ্চলভিত্তিক হাসপাতাল নির্মাণ ও কর্মসংস্থান সৃষ্টিকে অগ্রাধিকার দেওয়া উচিত বলে মানববন্ধনে বলেন বক্তারা।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ