কেমন গুণের মানুষকে নেতা মানবো ভাবা দরকার

প্রকাশিত: ৭:৫৩ পূর্বাহ্ণ, জুন ২৬, ২০২০

কেমন গুণের মানুষকে নেতা মানবো ভাবা দরকার

|| মানোয়ার হোসেন || ২৬ জুন ২০২০ : সংগঠনে একজন কে নেতা মানতে হয়। কিন্তু কেমন গুণের মানুষকে নেতা মানবো ভাবা দরকার। যোগ্য/অনুকরনীয় নেতা-নেতৃত্ব বিষয়ক “ক্ল্যাসিকাল-আধুনিক-কাল উপযোগী” সুগভীর আলোচনা, তত্ত্ব, রেফারেন্স ইত্যাদি যা কিছু আছে, তা কেউ দিয়েন পড়ে দেখবো। আপাতত খালি চোখে যা মনে হয় তার অংশ বিশেষ।

সমতাভিত্তিক সমাজ গঠনের কথা বলে যে নেতা নিজেই বৈষম্যের উদাহরণ তৈরি করেন।
দামি গাড়ি।
বিলাসবহুল বাড়ি।
ব্যাংকে গচ্ছিত অঢেল টাকা।
অর্থাৎ শখ-রুচি-প্রয়োজন, ইত্যাদি বাহানায়। আয়েশী জীবনাচরনের মাধ্যমে সম্পদের যথেচ্ছ ব্যবহার করেন।

কর্মী নেতাকে ঘাড়ে তুলে নাচবে আর নেতা কর্মীর হাত ধরলে “জাত যাবে, নেতার ভার কমে যাবে “- এমন ভাবধারী।

‘পেশাদার রাজনীতিক’ এই তকমা গায়ে লাগিয়ে কর্মহীন থাকেন অথচ নিজের জীবন-জীবিকা সংস্থানের কোনো স্বচ্ছ হিসেব নেই ।

‘সৃজনশীল-সৎ-জ্ঞানমুখি’ ইত্যাদি নানা গুন সম্পন্ন নেতৃত্ব তৈরির কথা বলে নিজের স্তুতি করতে পারে , বিনা প্রশ্নে সব মেনে নিয়ে জ্বী হুজুর করতে পারে এমন অসৎ-সংস্কারাচ্ছন্ন কর্মী পরিবেষ্টিত থাইক্যা বড় নেতা-মহান নেতা-শক্তিশালী নেতা ইত্যাদি সুখ অনুভব করেন ।

অসাম্প্রদায়িক রাজনীতির কথা বলে নিজেই কোনো বিশেষ সম্প্রদায়ের প্রতি পক্ষপাতদুষ্ট থাকেন।

নারী-পুরুষ সমতার কথা বলে নিজেই নারীকে ভোগের পন্য, অবলা মনে করেন । মতে না মিললে গায়ের জোড়ে নারীকে নির্যাতন করতে ছাড়েন না
বাস্তবতার দোহাই দিয়ে তথাকথিত “সামাজিক-পারিবারিক-সাংস্কৃতিক রীতিনীতি-মর্যাদা” নামক ব্যানারের নিচে নিজের “সেরা-বড়-উন্নত” ধবধবা চেহারা জারি রেখে অশিক্ষিত-নিচু-দুর্বল কর্মীদের বিশ্বাসী চিৎকারকে পুঁজি করে নেতা সাজার দিন শেষ হোক ।

অথবা, আমার এহেন ধারনা ভুল। ইহা ভাঙ্গাইয়া দিয়া আমাকে কেউ সঠিক শিক্ষা দিয়া উপকার করেন। পিলিজ …।।