ননএমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের প্রণোদনা দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী ও বাদশাকে ধন্যবাদ দিলেন সৈয়দ অামিরুজ্জামান

প্রকাশিত: ৬:১১ পূর্বাহ্ণ, জুন ২৬, ২০২০

ননএমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের প্রণোদনা দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী ও বাদশাকে ধন্যবাদ দিলেন সৈয়দ অামিরুজ্জামান

শেখ জুয়েল রানা, মৌলভীবাজার, ২৬ জুন ২০২০ : জাতীয় সংসদে ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের উপর সাধারণ আলোচনায় বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি কর্তৃক উত্থাপিত ননএমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের প্রণোদনা দেওয়ার দাবিটি দুইদিন পরই পূরণ করার ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। ননএমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের প্রণোদনা দেওয়ার দাবিটি পূরণ করায় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও সংসদে দাবীট উত্থাপনকারী কমরেড ফজলে হোসেন বাদশা এমপিকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির মৌলভীবাজার জেলা সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য, অারপি নিউজের সম্পাদক ও বিশিষ্ট কলামিস্ট সৈয়দ অামিরুজ্জামান।

গত ২৩ জুন জাতীয় সংসদে ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের উপর সাধারণ আলোচনায় বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি কর্তৃক উত্থাপিত ননএমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের প্রণোদনা দেওয়ার দাবিটি পূরণ করায় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশাকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন রাজশাহী মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির নেতৃবৃন্দ।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি লিয়াকত আলী লিকু ও সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবুর গণমাধ্যমে পাঠানো এক যৌথ বিবৃতিতে এই ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানানো হয়।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন- করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে সুবিধাবঞ্চিত ননএমপিও শিক্ষক- কর্মচারীরা দুর্বিষহ জীবনাযাপন করছিলেন। প্রণোদনা দিয়ে তাদের পাশে দাঁড়ানো সময়ের দাবি হয়ে দাঁড়িয়েছিলো। ইতিমধ্যেই সেই দাবি বাস্তবায়ন করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও উক্ত দাবি সংসদে উত্থাপিত করার জন্য সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশাকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

এর আগে করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে সুবিধাবঞ্চিত ননএমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের প্রণোদনা দেয়ার দাবি জাতীয় সংসদে জানিয়েছিলেন রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা। তিনি বলেছিলেন, বেসরকারি নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীরা বেতন পাচ্ছেন না। তাদের জন্য প্রণোদনার প্রস্তাব করছি। প্রস্তাব করছি বিশেষ তহবিলেরও, যার থেকে তাদের ঋণ দেয়া যাবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুই দিনের মধ্যে তার দাবি পূরণ করেছেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে ননএমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের সহায়তায় ৪৬ কোটি ৬৩ লাখ টাকা প্রণোদনা হিসেবে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এ অর্থ ৮০ হাজার ৭৪৭ জন শিক্ষক ও ২৫ হাজার ৩৮ জন কর্মচারীর মধ্যে বিতরণ করা হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমপিওবিহীন শিক্ষকদের জন্য ৪৬ কোটি ৬৩ লাখ ৩০ হাজার টাকা প্রণোদনা হিসেবে বরাদ্দ দিয়েছেন। এ অর্থ এমপিও সুবিধা পাচ্ছে না এমন ৮০ হাজার ৭৪৭ জন শিক্ষক ও ২৫ হাজার ৩৮ কর্মচারীর মধ্যে বিতরণ করা হবে।