ড্রাগ কন্ট্রোলারের অনুমোদন ছাড়া ভ‍্যাকসিন আনার দিন কীভাবে ঘোষণা করলো আইসিএমআর: ইয়েচুরি

প্রকাশিত: ৯:৩১ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৬, ২০২০

ড্রাগ কন্ট্রোলারের অনুমোদন ছাড়া ভ‍্যাকসিন আনার দিন কীভাবে ঘোষণা করলো আইসিএমআর: ইয়েচুরি

দিল্লি (ভারত), ০৬ জুলাই ২০২০: স্বাধীনতা দিবসের দিন করোনা ভাইরাসের ভ‍্যাকসিন আবিষ্কারের কথা ঘোষণা করবেন প্রধানমন্ত্রী। তাই তড়িঘড়ি ভ‍্যাকসিনের ক্লিনিক‍্যাল ট্রায়াল শেষ করার চেষ্টা করছে আইসিএমআর। ১৫ আগস্টের মধ্যে দেশের বাজারে করোনার টীকা আনা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করলেন সিপিআইএম সাধারণ সম্পাদক কমরেড সীতারাম ইয়েচুরি। তিনি বলেন, বৈজ্ঞানিক উদ্ভাবনে কোনো নির্দেশ জোর করে চাপিয়ে দেওয়া যায় না।

হায়দ্রাবাদের ভারত বায়োটেক ইন্টারন‍্যাশানাল লিমিটেডের সহায়তায় করোনার ভ‍্যাকসিন – কোভ‍্যাকসিন আবিষ্কারের চেষ্টা করছে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিকেল রিসার্চ (আইসিএমআর)। আগামী ১৫ আগস্টের মধ্যে এই প্রতিষেধক বাজারে আনার কথা বলা হয়েছে। গতকালই আইসিএমআর-এর প্রধান বলরাম ভার্গব চিঠি লিখে এই টীকা বাণিজ্যিকভাবে ব‍্যবহারের আগে দেশের বিভিন্ন সংস্থা বা হাসপাতালকে ক্লিনিক‍্যাল ট্রায়াল করার ছাড়পত্র দিয়েছেন। আগামী ৭ জুলাইয়ের মধ্যে স্বেচ্ছাসেবকদের ওপর এই প্রতিষেধকের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু হবে।
প্রশ্ন উঠছে এখানেই। গবেষকদের কথায়, কোনো প্রতিষেধক বাজারে আনার জন্য চারটি ধাপের প্রয়োজন হয়। সেই ধাপ সম্পূর্ণ করতে সময় লাগে কমপক্ষে ৯ মাস। কিন্তু ভারত বায়োটেক এখানে পাচ্ছে মাত্র ৫ সপ্তাহ। এতো তাড়াহুড়ো করলে ফল হিতে বিপরীত হতে পারে।
এই বিষয়টি উল্লেখ করে সীতারাম ইয়েচুরি নিজের ট‍্যুইটারে লেখেন, “এই মহামারীর হাত মুক্তির জন্য সবথেকে ভালো উপায় হলো ভ‍্যাকসিন। সমগ্র বিশ্ব সর্বজনীনভাবে ব্যবহারযোগ্য একটি নিরাপদ ভ্যাকসিনের জন্য অপেক্ষা করছে। কিন্তু… বৈজ্ঞানিক অগ্রগতি কখনোই নির্দেশ মেনে চলে না। স্বাস্থ্যবিধি ও নিরাপত্তাকে পাশ‌ কাটিয়ে কোভিড-১৯ এর নিরাময়ের জন্য তড়িঘড়ি প্রতিষেধক আবিষ্কার আসলে মানুষের জীবনের মূল্যের বিনিময়ে প্রধানমন্ত্রীর স্বাধীনতা দিবসে ভাষণের একটা অংশ তৈরি করা।”
তাঁর অভিযোগ, বিভিন্ন ইন্সটিটিউটকে ক্লিনিক‍্যাল ট্রায়ালে অংশ নেওয়ার জন্য হুমকি দিয়েছে আইসিএমআর। হায়দ্রাবাদের এনআইএমএস-এর ক্ষেত্রে তেলেঙ্গানা সরকার অনুমতি দিয়েছে কিনা সে বিষয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।
এই ট্রায়াল সম্পর্কে আরো বেশ কিছু প্রশ্ন করেছেন সিপিআইএম সাধারণ সম্পাদক। তাঁর প্রশ্ন, “ড্রাগ কন্ট্রোলারের অনুমোদন ছাড়া কীভাবে বাজারে ভ‍্যাকসিন আনার দিন ঘোষণা করলো আইসিএমআর? এই ট্রায়ালে কতজন অংশ নেবে? ১৪ আগস্টের মধ্যে কি ট্রায়ালের প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় ধাপ সম্পূর্ণ হয়ে যাবে এবং তার ফলাফল বিশ্লেষণও হয়ে যাবে? ইন্ডিপেন্ডেন্ট ডেটা সেফটি মনিটরিং কমিটির সদস্য কারা? এই সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের উত্ত‍র দিতেই হবে।”