প্রথম আলোর যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান খান আর নেই

প্রকাশিত: ৪:৪২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২১

প্রথম আলোর যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান খান আর নেই

ঢাকা, ১১ জানুয়ারি ২০২১ : প্রথম আলোর যুগ্ম সম্পাদক, বিশিষ্ট সাংবাদিক মিজানুর রহমান খান আর নেই।

আজ সন্ধ্যা ৬টা ৫ মিনিটে রাজধানীর একটি হাসপাতালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

মিজানুর রহমান খানের ছোট ভাই ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) বর্তমান সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৩ বছর। তিনি মা, স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

মরহুমের নামাজে জানাজা আগামীকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় ডিআরইউ প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে।

পারিবারিক সূত্র জানায়, মিজানুর রহমান খানের করোনার নমুনা পরীক্ষায় ২ ডিসেম্বর পজিটিভ রিপোর্ট আসে। ৫ ডিসেম্বর তিনি ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নেন। সেখানে সমস্যা বাড়লে গত ১০ ডিসেম্বর তাকে মহাখালীর ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাকে নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে রেখে চিকিৎসা করা হয়। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে গত শনিবার বিকেলে তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। আজ সন্ধ্যা ৬টা ৫ মিনিটে তাকে মৃত ঘোষণা করেন দায়িত্বরত চিকিৎসক।

সাংবাদিক মিজানুর রহমান খান তার প্রায় ৩ দশকের বর্ণাঢ্য সাংবাদিকতা জীবনে দৈনিক যুগান্তরসহ বিভিন্ন বিভিন্ন গণমাধ্যমে কাজ করেছেন। আইন ও সংবিধান বিষয়ক সাংবাদিকতায় তার ছিল অসামান্য অভিজ্ঞতা।

বরিশালের বিএম কলেজ থেকে হিসাববিজ্ঞানে স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জনকারী মিজানুর রহমান খান তিন দশক ধরে সাংবাদিকতা করেছেন। সংবিধান ও আইন নিয়ে লেখালেখি করেন। উল্লেখযোগ্য বই সংবিধান ও তত্ত্বাবধায়ক সরকার বিতর্ক, ১৯৭১: আমেরিকার গোপন দলিল।

মিজানুর রহমান খানের মৃত্যুতে রাশেদ খান মেননের শোক 

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি কমরেড রাশেদ খান মেনন এমপি প্রথম আলোর যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান খানের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

মেনন বলেন, তিনি অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা বিশেষ করে আইন-আদালত বিষয়ে রিপোর্টিং ও প্রতিবেদন তৈরিতে সিদ্ধহস্ত ছিলেন। বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের পিছনের কারণ খুঁজতে গিয়ে তিনি মার্কিন এবং ব্রিটিশ মিউজিয়ামে রক্ষিত দলিলসমূহ সংগ্রহ করেন এবং যার ভিত্তিতে তৈরি প্রতিবেদনে বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ড বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মহলের সম্পৃক্ততার বিষয়টি দেশবাসীর সামনে আসে। কিন্তু দুভার্গ্যজনক যে তিনি এত স্বল্প বয়সে মৃত্যুবরণ করলেন যার মধ্য দিয়ে সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে বড় ধরনের   শূন্যতা সৃষ্টি হবে।

রাশেদ খান মেনন তার পরিবার ও সহকর্মীদের প্রতিও সহমর্মিতা জানিয়েছেন।

সৈয়দ অামিরুজ্জামানের শোক 

প্রথম আলোর যুগ্ম সম্পাদক, বিশিষ্ট সাংবাদিক মিজানুর রহমান খানের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির মৌলভীবাজার জেলা সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য, অারপি নিউজের সম্পাদক ও বিশিষ্ট কলামিস্ট সৈয়দ অামিরুজ্জামান।

মিজানুর রহমান খানের মৃত্যুতে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির কার্যনির্বাহী কমিটির পক্ষ থেকে সংগঠনের সভাপতি মুরসালিন নোমানী এক বার্তায় গভীর শোক ও দু:খ প্রকাশ করেছেন।

তিনি মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান । নামাজে জানাজায় সদস্যদের শরিক হবার জন্য ডিআরইউ সভাপতি অনুরোধ জানিয়েছেন।

মৌলভীবাজার জেলা, শ্রীমঙ্গল উপজেলা ও পৌর শাখা ওয়ার্কার্স পার্টির শোক

বিশিষ্ট সাংবাদিক মিজানুর রহমান খানের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির মৌলভীবাজার জেলা সম্পাদক তাপস কুমার ঘোষ, শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার সভাপতি দেওয়ান মাসুকুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক জালাল উদ্দিন এবং শ্রীমঙ্গল পৌর শাখার সভাপতি শেখ জুয়েল রানা ও সাধারণ সম্পাদক রোহেল অাহমদ।