রোজিনাকে হেনস্তার প্রতিবাদে শাস্তির দাবি বিএফইউজের

প্রকাশিত: ৫:৪০ অপরাহ্ণ, মে ১৮, ২০২১

রোজিনাকে হেনস্তার প্রতিবাদে শাস্তির দাবি বিএফইউজের

নিজস্ব প্রতিবেদক | ঢাকা, ১৮ মে ২০২১ : প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তার প্রতিবাদে ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত ও জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে)। মঙ্গলবার বিএফইউজের সভাপতি মোল্লা জালাল ও ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব আবদুল মজিদ স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ দাবি জানানো হয়।

নেতারা বলেন, কোন তথ্যর জন্য সাংবাদিকদের ফাইল ধরে টানাটানি করতে হয় না। সরকারের লোকেরাই সাংবাদিকদের তথ্য সরবারহ করে থাকে। কিন্তু পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে রোজিনাকে আটকে রেখে যেভাবে তাকে অপদস্থ করা হয়েছে তা অপমান ও ন্যক্কারজনক।

তারা বলেন, অবিলম্বে ঘটনা দুটির সুষ্ঠু তদন্ত ও অভিযুক্ত কর্মকর্তাদের বরখাস্তসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। বিচার দাবি করে প্রশাসনকে অবিলম্বে অপরাধীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানান।

তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগে মামলা করার প্রতিবাদে বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম (বিএসআরএফ) সচিবালয়ে গণমাধ্যম কেন্দ্রে জরুরি সভা করে। এ ঘটনার প্রতিবাদে রোজিনার মুক্তি ও দোষী ব্যাক্তিদের বিরুদ্বে অবিলম্বে ঘটনা দুটির সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার দাবি করে আগামীকাল বুধবার বেলা ১১ টায় সারাদেশের সকল সাংবাদিক ইউনিয়ন ও প্রেসক্লাবসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে অবস্থান কর্মর্সচির আহবান জানিয়েছে সংগঠনটি।

পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামের সঙ্গে স্বাস্থ্য সচিবের অফিস স্টাফদের অসদাচরণ, আটকে রেখে হয়রানি ও তথ্য চুরির মতো হাস্যকর অভিযোগ এনে গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির মৌলভীবাজার জেলা সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য, আরপি নিউজের সম্পাদক ও বিশিষ্ট কলামিস্ট সৈয়দ আমিরুজ্জামান বলেন, “এটা গণস্বার্থ রক্ষার জন্য বস্তুনিষ্ঠ ও প্রগতিশীল সাংবাদিকতার পরিপন্থী। যা গণমুখী সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যমের স্বাধীন বিকাশের জন্যও হুমকিস্বরূপ।”
সাংবাদিক দীপংকর ভট্টাচার্য লিটন ফেসবুক স্টেটাসে লিখেছেন, “সত্য প্রকাশে কন্ঠবোধ (গলা চেপে ধরা) এটা না গনমাধ্যম, না রাষ্ট্র কারো জন্যই সুখকর নয়। আমরা একদিকে বলি স্বাধীন গনমাধ্যম, আবার অন্য দিকে সত্য প্রকাশ করায় সাংবাদিকের কন্ঠ চেপে ধরতে। এটা শুধু গনমাধ্যকর্মীদের নয়, একটি গনতান্ত্রিক দেশের জন্যও লজ্জা। কতিপয় দুর্নীতিবাজ আমলাদের এমন নির্লজ্জ কর্মকান্ডে বহির্বিশ্বে নষ্ট হচ্ছে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি। তাই জেবুন্নেছাদের এখুনি থামান। মুক্তি দিন রোজিনা আাপাকে।”

 

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ