যখন কিছু ছিলাম না বা কিছু হওয়ার স্বপ্নও দেখি নাই

প্রকাশিত: ১:০৮ অপরাহ্ণ, মে ২৪, ২০২১

যখন কিছু ছিলাম না বা কিছু হওয়ার স্বপ্নও দেখি নাই

তানিয়া সুলতানা | ময়মনসিংহ, ২৪ মে ২০২১ : উইতে জয়েন করেছিলাম ২০২০ সালের জুনের ২৪ তারিখে। উইতে পোস্ট করা শুরু করেছিলাম  ২০২০ সালের জুলাই মাসের ১৮ তারিখ থেকে। আলহামদুলিল্লাহ সেই থেকে আছি উইয়ের সাথে, উইকে সাপোর্ট করে। ময়মনসিংহের উদ্যোক্তাদের পাশে রেখে . …..

ময়মনসিংহের আমিই প্রথম যে কি না উইয়ের সাথে ডিসি মিটিং এরেঞ্জ করেছিলাম উইতে এক্টিভ হওয়ার ১ মাসের মধ্যে।  শুধুমাত্র উইকে সাপোর্ট করি বলে। উই ভালো কাজ করছিল বলে,উইয়ের সাথে থাকলে ময়মনসিংহের উদ্যোক্তারা লাভবান হবে সেই লক্ষ্যে। কেউ আমাকে বলে নাই এটা। সম্পূর্ণ নিজের উদ্যোগে নিগের তাগিদে এটা করেছিলাম। ময়মনসিংহের কয়েকজন কে বলেছিলাম আস আমার সাথে আমরা সবাই যাই ডিসি স্যারের কাছে। কেউ যায় নাই আমার সাথে। আমি একা গিয়েছি। এরেঞ্জ করেছি ডিসি মিটিং। কিন্তু সেই মিটিং আমি একা ছিলাম না, ছিল ময়মনসিংহের অনেক উদ্যোক্তা, ছিল উইয়ের প্রেসিডেন্ট নাসিমা আক্তার নিশা আপু, উইয়ের এডভাইজার বৃন্দ। ডিসি স্যারের সাথে ময়মনসিংহের উদ্যোক্তাদের পরিচয় হলো।একটি সুন্দর সম্পর্ক তৈরি হলো ডিসি অফিসের সাথে ময়মনসিংহের উই  উদ্যোক্তাদের  👆👆

*** তখন  কিন্তু নিশা আপু এই তানিয়া নামের মেয়েটা কে চিনত না, বা সে উইয়ের ডিস্ট্রিক্ট হেড ছিল না। তাকে নিয়ে কেউ পোস্ট করে নাই, সে কভারেও আসে নাই।

উইয়ের ময়মনসিংহের উদ্যোক্তাদের লিস্ট করে ডিসি স্যারের কাছে দিয়েছিলাম আমি। সেটাও  আমি ময়মনসিংহের প্রথম কোন উই সদস্য হিসাবে। 👆👆

ময়মনসিংহের উদ্যোক্তাগণ কে কি নিয়ে কাজ করে সেটার লিস্টও করেছিলাম সর্বপ্রথম আমি। 👆👆

ময়মনসিংহের সর্বপ্রথম আমি ময়মনসিংহের উই উদ্যোক্তাদের কাছে ট্রেড লাইসেন্স করার জন্য প্রয়োজনীয় পোস্ট বা ইনবক্সে সহযোগিতা করেছিলাম আমিই। এখন তো উইয়ের ময়মনসিংহ বিভাগের প্রতিনিধি হয়ে কাজ করছি। তখন কিন্তু আমি শুধু তানিয়া নামের একজন উদ্যোক্তা ছিলাম।👆👆

ময়মনসিংহ মিটআপের জন্য নিশা আপুর কাছে সর্বপ্রথম আমি রিকোয়েস্ট করেছিলাম। আলহামদুলিল্লাহ সেই মিটআপে মাননীয় প্রতিমন্ত্রী মহোদয়,  ময়মনসিংহের প্রশাসন, রাজনৈতিক ব্যাক্তিবর্গ, ময়মনসিংহের মেয়র, পুলিশ সুপার, বিভাগীয় কমিশনার স্যার, ব্যাবসায়ীবর্গ, চেম্বার অফ কমার্সের সভাপতি সহ অনেক গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের উইয়ের কার্যক্রম সম্পর্কে জানাই এবং ময়মনসিংহ মিটআপে আমন্ত্রণ জানাই। আলহামদুলিল্লাহ সফল ও স্বরণীয় একটি মিটআপ ময়মনসিংহবাসী আয়োজন করতে সক্ষম হই। যা কিনা ময়মনসিংহে সর্বপ্রথম হয়। 👆👆👆

উইয়ের উদ্যোক্তাদের জন্য ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের সুবিধাগুলো পাওয়ার জন্য ময়মনসিংহ বিভাগের সর্বপ্রথম আমি ময়মনসিংহের সিটি কর্পোরেশনের মেয়ের জনাব ইকরামুল হক টিটু ভাইয়ের আমি যাই। উইয়ের কথা জানাই ওনাকে। সেই থেকে ভাইয়া আমাকে উইয়ের তানিয়া আপা নামে চিনে এবং ডাকে। 👆👆👆

উইয়ের উদ্যোক্তাদের জন্য ডিসি স্যারের অফিস থেকে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত উদ্যোক্তাদের জন্য ন্যায্যমূল্যের বাজার নিজে সংগ্রহ করে উদ্যোক্তাদের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করেছি সেটাও ময়মনসিংহের প্রথম আমিই। 👆👆👆

ময়মনসিংহের কোন উদ্যোক্তা হিসাবে জয়ী এওয়ার্ড পেয়েছিলাম সেটাও ময়মনসিংহের সর্বপ্রথম আমি। 👆👆

ময়মনসিংহের উদ্যোক্তাদের বিসিক ট্রেনিংয়ের সুযোগ নিয়ে এসেছিলাম সর্বপ্রথম আমি। যাতে সুযোগ দিয়েছিলাম ময়মনসিংহের অনেক উদ্যোক্তা কে। এই অর্থবছর থেকে উইয়ের ব্যানারে ট্রেনিং হবে এই প্রস্তাবও দিয়েছি একমাত্র আমি। তখনও কিন্তু আমি উইয়ের ডিস্ট্রিক্ট হেড বা মডারেটর না 👆👆

উইয়ের নাম দিয়ে এসএমই ট্রেনিংয়ে ৭ জন উদ্যোক্তাকে সর্বপ্রথম আমিই সেই সুযোগ করে দিয়েছিলাম। তখনও কিন্তু আমি ময়মনসিংহের ডিসট্রিক্ট হেড বা মডারেটর না 👆👆

এরপর ডিস্ট্রিক্ট হেড হয়েছি, মডারেটর হয়েছি এবং ময়মনসিংহ বিভাগের জন্য কাজ করার সুযোগ পেয়েছি  একমাত্র নিজের যোগ্যতায়। শুধুমাত্র নিজের যোগ্যতায় 🙂

এখন আমি উইয়ের পদ বহন করছি তাই কাজ করব এটাই স্বাভাবিক। যখন কিছু ছিলাম না বা কিছু হওয়ার স্বপ্নও দেখি নাই যারজন্য এসব করেছি। কাজ করতাম উই কে সাপোর্ট করতাম ও ময়মনসিংহের জন্য কিছু করার সুপ্ত বাসনা থেকে।

উই এখন আর কোন ফেইসবুক গ্রুপ নয়। উই এখন  দেশীয় পণ্যের  ইকমার্স উদ্যোক্তাদের একটি সংগঠন। যার খ্যাতি এখন দেশ ছাড়িয়ে বিদেশে ছড়িয়ে গিয়েছে।

এই পোস্ট একান্তই আমার কথা দিয়ে লিখেছি।

ধন্যবাদ সকল কে….

ডিসি স্যারের সাথে মিটিংয়ে তোলা ছবি। আমার জন্য স্মরনীয় মূহুর্ত। যে জায়গা থেকে প্রথম সফল হয়ে উদ্যোমী হয়েছিলাম ময়মনসিংহ কে নিয়ে কাজ করার লক্ষ্যে।
ধন্যবাদ Mizanur Empathy ToInnovation স্যার আপনাকে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ