ডলফিন হত্যা বন্ধে আইন প্রণয়নের দাবি

প্রকাশিত: ১:০১ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১০, ২০২১

ডলফিন হত্যা বন্ধে আইন প্রণয়নের দাবি

পটুয়াখালী প্রতিনিধি | ১০ আগস্ট ২০২১ : কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে এ বছর বর্ষা মৌসুমে ৬টি ডলফিনের মৃতদেহ ভেসে এসেছে। সাগরে জেলেদের ফেলা জালে ডলফিন আটকা পড়লেই সেগুলো মেরে সাগরে ফেলে দিচ্ছে জেলেরা। এছাড়া সাগরে ফেলা জেলেদের হাজারী বড়শিতে আটকেও মারা যাচ্ছে ডলফিন। তাই সাগরে নির্বিচারে ডলফিন হত্যা বন্ধে এখনই আইন প্রণয়ন ও জেলেদের সচেতন করার দাবি জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে কুয়াকাটা ডলফিন রক্ষা কমিটি।

মঙ্গলবার (১০ অাগস্ট ২০২১) বেলা ১১টায় কলাপাড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ‘ডলফিন রক্ষা কমিটির’ টিমলিডার রুমান ইমতিয়াজ তুষার।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, দেশে যখন জীববৈচিত্র রক্ষায় সরকারি-বেসরকারিভাবে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে, ঠিক তখনই কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে মারা যাচ্ছে ডলফিন। গত দুইদিনে তিনটি বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির ডলফিনের মৃতদেহ ভেসে এসেছে। মৃত ডলফিনগুলো সাগরে ফেলা জালে আটকা পড়ায় সেগুলো মারা গেছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, সমুদ্রগামী জেলেদের মধ্যে অসচেতনতার অভাবে এভাবে নির্বিচারে ডলফিন মারা যাচ্ছে। প্রতি বছর এভাবে অন্তত ১০ থেকে ১২টি ডলফিন শুধু সৈকতেই ভেসে আসছে। তাই জরুরি ভিত্তিতে সমুদ্রের এই বন্ধু প্রাণীদের রক্ষায় সরকারি পদক্ষেপ নেয়া উচিত। প্লাস্টিক পলিথিন ও ছেঁড়া জালমুক্ত করতে হবে সাগর ও নদী।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইকোফিস-২ প্রকল্পের পটুয়াখালী জেলার সহকারী গবেষক সাগরিকা স্মৃতি, ডলফিন রক্ষা কমিটির সদস্য কে এম বাচ্চু, আবুল হোসেন রাজু ও আসাদুজ্জামান মিরাজ প্রমুখ।
সাগরে নির্বিচারে ডলফিন হত্যা বন্ধে এখনই আইন প্রণয়ন ও জেলেদের সচেতন করার দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির মৌলভীবাজার জেলা সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য, অারপি নিউজের সম্পাদক ও বিশিষ্ট কলামিস্ট কমরেড সৈয়দ অামিরুজ্জামান।