শহীদ জায়া মুশতারী শফী আর নেই

প্রকাশিত: ২:৩৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২০, ২০২১

শহীদ জায়া মুশতারী শফী আর নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক | ঢাকা, ২০ ডিসেম্বর ২০২১ : একাত্তরের রণাঙ্গনে বিশেষ অবদান রাখা নারীনেত্রী ও শহীদজায়া বেগম মুশতারী শফী আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

সোমবার (২০ ডিসেম্বর ২০২১) বিকেলে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। বেগম মুশতারী শফীর জামাতা আবদুল্লাহ জাফর তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর। তিনি সাত ছেলে-মেয়ে রেখে গেছেন। একাত্তরে মুশতারী শফীর স্বামী ডা. মোহাম্মদ শফীকে বাসা থেকে ধরে নিয়ে হত্যা করা হয়েছিল।

৮৪ বছর বয়সী মুশতারী শফী কিডনি, রক্তে সংক্রমণসহ নানা জটিলতায় ভুগছিলেন। গত ২ ডিসেম্বর উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম থেকে তাকে ঢাকায় আনা হয়েছিল।

মুশতারী শফীর ছেলে মেহরাজ তাহসীন শফী জানান, তার মরদেহ মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) চট্টগ্রামে নিয়ে যাওয়া হবে এবং সেখানেই দাফন করা হবে।

১৯৩৮ সালের ১৫ জানুয়ারি তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের পশ্চিমবঙ্গে মুশতারী শফীর জন্ম। তার বাবার বাড়ি ফরিদপুরে। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ৭ এপ্রিল তার স্বামী চিকিৎসক মোহাম্মদ শফী ও ছোট ভাই এহসানুল হক আনসারীকে হত্যা করে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী। মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ের দিন পর্যন্ত স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে শব্দসৈনিক হিসেবে কাজ করেছেন বেগম মুশতারী।

নারী অধিকার আদায়ে দীর্ঘ সংগ্রাম করেছেন মুশতারী শফী। ১৯৬৩ সালে চট্টগ্রাম থেকে ‘বান্ধবী’ নামে মাসিক সাময়িকী প্রকাশ করেছিলেন। এটি ছিল বাংলাদেশের নারীদের জন্য দ্বিতীয় সাময়িকী।

একাত্তর পরবর্তী সময়ে তিনি ছিলেন ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির অন্যতম সংগঠক। মুশতারী শফী ‘মুক্তিযুদ্ধে চট্টগ্রামের নারী’, ‘চিঠি’, ‘জাহানারা ইমামকে’ এবং ‘স্বাধীনতা আমার রক্তঝরা দিন’ প্রভৃতি মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক গ্রন্থ রচনা করেছেন।

মুক্তিযুদ্ধে অনন্য অবদান রাখায় ২০১৬ সালে শহীদজায়া মুশতারী শফীকে ফেলোশিপ দেয় বাংলা একাডেমি। ২০২০ সালে পান বেগম রোকেয়া পদক এই মহীয়সী নারী।

ওয়ার্কার্স পার্টির শোক

একাত্তরের রণাঙ্গনে বিশেষ অবদান রাখা নারীনেত্রী ও শহীদজায়া বেগম মুশতারী শফী’র মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি ও সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি।

সৈয়দ আমিরুজ্জামানের শোক

চেতনার বাতিঘর সমাজ প্রগতির লড়াইয়ের সাহসী যোদ্ধা, সাংস্কৃতিক আন্দোলনের নেতা, একাত্তরের রণাঙ্গনে বিশেষ অবদান রাখা নারীনেত্রী ও শহীদজায়া বেগম মুশতারী শফী’র মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির মৌলভীবাজার জেলা সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য, আরপি নিউজের সম্পাদক ও বিশিষ্ট কলামিস্ট কমরেড সৈয়দ আমিরুজ্জামান।

সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের শোক

সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমেদ এক শোক বিবৃতিতে মহান মুক্তিযুদ্ধের অকৃতিম সেবক, চেতনার বাতিঘর সমাজ প্রগতির লড়াইয়ের সাহসী যোদ্ধা সাংস্কৃতিক আন্দোলনের নেতা, কলামিস্ট ও লেখক শহীদ জায়া মুশতারী শফীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।
বিবৃতিতে আরো বলা  হয়, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সমুন্নত রাখার সংকল্পে মুশতারী শফী আমৃত্যু অসাম্প্রদায়িক চেতনার পক্ষ্যে কথা বলে গেছেন। তার মৃত্যুতে আমরা গভীর শোকহত, আমরা প্রয়াত এই মহিয়শী নারীর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি এবং শোকার্ত পরিবার পরিজনের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি।

ঐক্য ন্যাপের শোক প্রকাশ

ঐক্য ন্যাপ সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্য ও সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট আসাদুল্লাহ তারেক এক বিবৃতিতে “স্বাধীন বাংলা বিপ্লবী বেতার কেন্দ্রের অন্যতম সংগঠক, যুদ্ধাপরাধী বিচার আন্দোলনের অগ্রসৈনিক, সামাজিক  সাংস্কৃতিক আন্দোলনের পুরোধা সংগঠক, সাহিত্যিক ও লেখক শহীদ জায়া বেগম মুশতারী শফীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেন।

নেতৃবৃন্দ প্রয়াত এই মহিয়শী নারীর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং শোকার্ত পরিবার-পরিজন, সহকর্মীদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।”

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ