পরাজিত মানুষের জন্মদিনে আনন্দ থাকবার কথাও না

প্রকাশিত: ৯:৪৮ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১, ২০২২

পরাজিত মানুষের জন্মদিনে আনন্দ থাকবার কথাও না

হোসেন শহীদ মুফতি | ঢাকা, ০১ মার্চ ২০২২ : গত ১৩ ফেব্রুয়ারি ছিল আমার জন্মদিন। আমার জন্মদিন নিয়ে আমার কোন আবেগ, উচ্ছ্বাস, আগ্রহ নেই। কারণ বড় মানুষ হয়ে উঠতে ছেয়েছিলাম, হতে পারিনি, দিনকে দিন পরাজিত হয়েছি পরিস্থিতির কাছে। বড় মানুষেরা আর সবার মতোই একটা প্রদত্ত পরিস্থিতিতে জন্মান। কিন্তু বাকিদের মতো সেই পরিস্থিতির দাস হয়ে যান না। এর মধ্যে দিয়েই উতরে যান একে। তাই তাঁরা হয়ে ওঠেন বড় মানুষ। দূর্ভাগ্য আমার, আমিও অন্য অনেকের মতো পরিস্থিতির দাস হয়ে রইলাম। আর বড় মানুষ হয়ে ওঠতে পারলামনা।

তাই আমার জন্মটাই আমার কাছে নিরর্থক মনে হয় । ব্যক্তিগত জীবন ছাড়া অন্য সকল ক্ষেত্রে ব্যর্থ, অসফল, পরাজিত মানুষের জন্মদিনে আনন্দ থাকবার কথাও না। মনের মধ্যে সারাদিন খোঁচা দিতে থাকে এই কথাগুলো- না নিজের জন্য, না পরিবারের জন্য, না সমাজের জন্য, না দেশের জন্য কিছু করতে পারলাম। এই জগৎ সংসারে নিজকে খুব অপাংক্তেয়,অযোগ্য মনে হয়। নানা ধরণের সীমাবদ্ধতা, অযোগ্যতা ও অক্ষমতার ভারে যখন আমি নুব্জ্য তখন ফটিকছড়ি আনন্দশৈলী গণ পাঠাগার এর কলেজ- বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী তরুণ পাঠক ও সংগঠকরা কি জানি কী মনে করে আমার জন্মদিনে পাঠাগার এর প্রধান গ্রন্থ ভান্ডার (দপ্তরে) আনুষ্ঠানিকভাবে জড়ো হলেন, আনন্দ করলেন, কেক কাটলেন এবং আমাকে আমার অতি প্রিয় মাওলানা রুমীর কবিতার বই (জাভেদ হুসেন অনূদিত) উপহার দিলেন ঠিক বুঝে উঠতে পারছিনা।
তবুও আপনাদের উপহার সকাতরে গ্রহণ করলাম।
জয় হোক আপনাদের, জয় হোক আনন্দশৈলীর পথচলা।
মাওলানা রুমীর মসনভি থেকে একটি পংক্তিমালা লিখে শেষ করি-
যখন ইচ্ছে বেদনাকে আনন্দ করে দাও
পায়ের শিকল শোনায় মুক্তির বারতা

#

লেখক: সাবেক ছাত্র নেতা ও সদস্য, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ,
গণতান্ত্রিক ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক নেতা।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ