আমরা ডাটা ভিত্তিক সভ্যতার যুগে প্রবেশ করেছি : টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী

প্রকাশিত: ২:৪৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০২২

আমরা ডাটা ভিত্তিক সভ্যতার যুগে প্রবেশ করেছি : টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক | ঢাকা, ২৮ নভেম্বর ২০২২ : ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার ডিজিটাল যুগের উপযোগী প্রযুক্তির ব্যবহার নিশ্চিত করার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্ব আরোপ করে বলেছেন, ‘আমরা ডাটা ভিত্তিক সভ্যতার যুগে প্রবেশ করেছি।’
তিনি বলেন, ডাটা হাইওয়ে বা ইন্টারনেট মহাসড়ক তৈরি করতে না পারলে সামনে এগিয়ে যাওয়ার কোন প্রচেষ্টাই সফল হবে না। দেশে উচ্চগতির ইন্টারনেটের টেকসই মহাসড়ক বিনির্মাণে আমরা কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছি।
মন্ত্রী আইপিভি সিক্স প্রযুক্তি যত দ্রুত সম্ভব রূপান্তরের জন্য আইএসপিএবিসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান।
মোস্তাফা জব্বার রোববার রাতে রাজধানীর রেডিসন হোটেলে আইএসপিএবি আয়োজিত ‘মিট দ্য হরাইজন’ অনুষ্ঠানে ‘আইএসপিবি নিক্স সেবা’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ আহবান জানান।
টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, ইন্টারনেট ডিজিটাল বাংলাদেশ কিংবা স্মার্ট বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার সবচেয়ে বড় শক্তি। জনগণকে দ্রুত গতির ইন্টারনেট দিতে পারলে উন্নয়নের সবচেয়ে বড় শক্তি হিসেবে এটি কাজ করবে।
তিনি বলেন, নিরবচ্ছিন্নভাবে দ্রুতগতির ইন্টারনেট সেবা নিশ্চিত করতে সম্ভাব্য সব কিছু করতে সরকার বদ্ধপরিকর।
মন্ত্রী সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের সাথে আলোচনার মাধ্যমে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের একদেশ একরেট চালু করার বিষয়টিকে দেশে ইন্টারনেট সেবা বিকাশে এক যুগান্তকারী কর্মসূচি বলে উল্লেখ করেন।
তিনি বলেন, ডিজিটাল বৈষম্য বিমোচনে এটি আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলেও প্রশংসিত হয়েছে। এই জন্য ‘আমরা এ বছর এসোসিও পুরস্কারও পেয়েছি’।
ডিজিটাল প্রযুক্তি বিকাশের অগ্রদূত মোস্তাফা জব্বার জনগণের কল্যাণে সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোর সাথে আলোচনার মাধ্যমেই এধরণের কর্মসূচি ভবিষ্যতেও অব্যাহত রাখা হবে বলে দৃঢ় প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন ।
তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচিকে দূরদৃষ্টিসম্পন্ন কর্মসূচি হিসেবে অভিহিত করে বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচির ধারাবাহিকতায় গত ১৪ বছরে বাংলাদেশ আজ বিশ্বে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।
মন্ত্রী ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে আইএসপিএবির ভূমিকার প্রশংসা করে বলেন, ডাটা’র মহাসড়ক তৈরি করতে না পারলে ডাটা সভ্যতা গড়ে তোলা সম্ভব হবে না।
তিনি উল্লেখ করেন, আইএসপিএবি’র মহাসড়ক যত প্রশস্ত, মসৃণ ও সহজলভ্য হবে ততটাই বিস্তার লাভ করবে ডিজিটাল বাংলাদেশ।
মন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন, দেশের অন্যান্য বাণিজ্যিক সংগঠনগুলো আইএসপিএবি’কে অনুসরণ করে জনগণকে সেবা দিবে।
এ সময় নেতাদের বিভিন্ন দাবির জবাবে জনসংখ্যার ভিত্তিতে আইএসপি লাইসেন্সের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরে মোস্তাফা জব্বার বলেন, সীমাহীনভাবে কোনো লাইসেন্স চলতে দেওয়া যায় না।
ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার্স অব বাংলাদেশের (আইএসপিএবি) সভাপতি ইমদাদুল হকের সভাপাতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার, ভাইস চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মহিউদ্দিন আহমেদ, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো: আবদুর রহিম খান ও আইএসপিএবি’র সাধারণ সম্পাদক নাজমুল করিম ভূঁইয়া বক্তৃতা করেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ