মানুষের মস্তিষ্ক এক অসাধারণ বায়ো-কম্পিউটার

প্রকাশিত: ৫:১৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ১১, ২০২১

মানুষের মস্তিষ্ক এক অসাধারণ বায়ো-কম্পিউটার

জেসমিন খান চাঁদনী || ঢাকা, ১১ মার্চ ২০২১ : ধৈর্য্য! প্রিয় উইবাসী, বাস্তব কখনো কখনো কল্পনার চেয়েও অবিশ্বাস্য হয়। কেউ যদি বলে আমি পঁচিশ বছর বয়সে অর্ধ পৃথিবীর সম্রার্ট হবো- কথাটা গাঁজাখুরি বলে উরিয়ে দিবে অনেকে, কিন্তু আলেকজান্ডার তা হয়েছিলেন। সংবাদ পাঠক পদের জন্য এক আবেদন প্রার্থীকে প্রত্যাখ্যান করা হয়। কারণ তার কণ্ঠস্বর যর্থাথ ছিল না। তিনিই আজকের অমিতাভ বচ্চন! একজন স্কুল শিক্ষক, ছাত্র অংকে মনযোগী না হওয়ায় এবং ছোট্ট অংক করতে না পারায় তাকে শিক্ষক বলেছিলেন, “তুমি জীবনে কিছুই হতে পারবে না।” সেই বালক বড় হয়ে হয়েছিলেন মস্তবড় বিজ্ঞানী। তার নাম আলবার্ট আইনস্টান।

উপরের উদাহরণগুলোর সারমর্ম হচ্ছে: যিনি কখনো পরাজিত হলেও লক্ষ্যহীন হন না, তিনিই প্রকৃত বিজয়ী।

মানুষের মস্তিষ্ক এক অসাধারণ বায়ো-কম্পিউটার। এই কম্পিউটারে যে মানুষ যে রকম প্রোগ্রাম করবেন, তিনি সেরকম ফল পাবেন। যিনি হতাশ হয়ে নিজেকে বলবেন, তার দ্বারা কিছুই হবে না, তিনি জীবনে ব্যর্থ হবেন। আর যিনি হাজারো প্রতিকূলতার মাঝেও বড় কিছু করার স্বপ্ন দেখবেন, তিনি ঠিকই তা করে ফেলবেন। বিশ্বাস বা প্রোগ্রামিং হয়ে গেলে বায়ো কম্পিউটার স্বয়ংক্রিয়ভাবে কাজ করে বিজয়ের মালা পরিয়ে দিবে আপনাকে। সাফল্যের জন্য যা কিছু করতে হয়, মন শরীরকে দিয়ে স্বতঃস্ফুর্তভাবে করিয়ে নেবে। (১০ মিনিট ইস্কুল)

আমি জেসমিন খান চাঁদনী
স্বত্বাধিকারী,
আজরিফ ফ্যাশন গ্যালারী (মিনি গার্মেন্টস)

পরিচালক,
আজরিফ ক্ষুদ্র ব্যাবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিটেড।
কো-অডিনেটর, ট্রাষ্ট বিডি।