মেয়ে বিচ্ছু আজিমপুরের মুক্তিযোদ্ধা কাহিনি

প্রকাশিত: ৮:৩৯ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২১, ২০২১

মেয়ে বিচ্ছু আজিমপুরের মুক্তিযোদ্ধা কাহিনি

|| রায়হান ফেরদৌসী || ঢাকা, ২১ এপ্রিল ২০২১ : সারল্যে মাখা অবয়বটি দেখলে মনে হয়না, আমাদের লিনু হক এক প্রচন্ড জেদী মেয়ে। তবে তার ভাষ্য মতে সেই জেদ থেকেই লিখে ফেলেছে একটি “এক হারা গড়নে”র এক অমূল্য গাথা। যে জেদ মানুষকে সত্য বলতে,লিখতে এবং চর্চা করতে শেখায়,সে জেদ নিঃসন্দেহে পজিটিভ। বীরপ্রতীক জামান ভাইয়ের সত্য আর কল্পকাহিনী পড়ে লিনু সিদ্ধান্ত নিল, না,এর বিপরীতে যে সত্য, সেই আসল সত্যকে তুলে ধরা তাঁর দায়িত্ব। তারই ফসল “মেয়ে বিচ্ছু আজিমপুরের মুক্তিযোদ্ধা কাহিনি “।

কোন গাল গল্প নয়,বানোয়াট কোন কাহিনী নয়,নয় কোন আদর্শ বা বীরত্ব- স্পর্শ মাখানো লড়াইয়ের কল্পকাহিনি।সহজ,সরল সাদা মাটা ভাবে সে লিখে গেছে,গোটা বাঙলাদেশের মতোন ঢাকার আজিমপুরে নিজেরা কি অসম্ভবকে তারা সম্ভব করেছিলো।এখন মনে হতে পারে এ এমন কি কাজ! কিন্তু একাত্তরের সেই দিনে একাজ ছিলো মৃত্য নিয়ে খেলা করার শামিল। কোন জৈষ্ঠ্য কমান্ডারের নির্দেশে নয়,নিজেদের ভেতর থেকে উৎসারিত আবেগ থেকে অবরুদ্ধ আজিমপুরের মেয়েরা কি করেছিলো প্রিয় মাতৃভূমির স্বাধীনতার জন্য তারই ছোট ছোট গীতিকবিতার সমষ্টি হলো লিনুর এই মেয়ে বিচ্ছু বইটি,আবার এটিই তার প্রথম প্রয়াস,প্রথম বই, প্রথম প্রেমের মতো।
নিজের জীবনকে যেমন সত্য,সুন্দর,শাশ্বত মানব জীবনের প্রতিকে রূপান্তরিত করেছে,এই বইটিও যেন তারই উজ্জ্বল প্রকাশ।
তার উপর বাড়তি পাওনা হলো তারই রক্ত কনা ঈরেশের অসাধারণ কিছু কথা।” সহযোদ্ধার বন্ধণ আত্মার বন্ধন।ইতিহাস আর সময়ের কঠিন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া কষ্টিপাথরে ঘঁষা খাঁটি সোনার মতই অনণ্য”।
মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় কালে রোরুদ্যমান বাঙলাদেশের অভ্যন্তরে থেকে যে অসম সাহসিক কর্মকান্ড লিনু হক সহ অন্যরা করেছিলো,এর মূল্য অপরিসীম।। তোমাকে এবং তোমাদের মেয়ে বিচ্ছু বাহিনীর সবাইকে অভিবাদন।
জয় বাঙলা।

পুনশচঃ এখন জেদের বশে আর একটি বই লিখে ফেলো।চরৈবতি, আমাদের সবার প্রিয় লিনু।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ